বাংলা সহায়ক

প্রতিবেদন |report|bengali report|প্রতিবেদন রচনা করুন সহজে | প্রতিবেদন রচনার খুঁটিনাটি | প্রতিবেদন রচনার উদাহরণ | BanglaSahayak.com

 


প্রতিবেদন রচনা

প্রতিবেদন শব্দের অর্থ হল বিবরণী ,ইংরেজিতে রিপোর্ট । 

 প্রতিবেদন কাকে বলে?

যে খবর সহজ-সরল ভাষায় সকল মানুষের বোধগম্যের উপযোগী করে প্রকাশ করা হয় প্রতিবেদন বলে।

প্রতিবেদন  হচ্ছে প্রকৃত ঘটনার বিবরণী বা বিবৃতি, যা জনগণের স্বার্থে প্রকাশ করা যায়। আসলে রিপোর্ট বা প্রতিবেদন বলতে বোঝানো হয় "একটি সংবাদ যোগ্য ঘটনার বিবরণী।" অর্থাৎ যে ঘটনা ভাব বা বিষয় সংবাদের মাপকাঠিতে বিবরণী আকারে প্রকাশ হবার যোগ্য তাকেই প্রতিবেদন বলা হয়। আর যিনি প্রতিবেদন  রচনা করেন তাকে বলা হয় প্রতিবেদক। তাহলে একথা বলা যায়, প্রতিবেদন মানেই কোনো না কোনো ঘটনা কিন্তু সব ঘটনা প্রতিবেদন নয়। যেসব ঘটনার একটা সংবাদ সুলভ মূল্য আছে তাই প্রতিবেদন হবার যোগ্য। একটা উদাহরণ দিলেই সহজে বোঝা যাবে। বিদ্যালয় প্রতিদিন ক্লাস হয়- এটা ঘটনা।কিন্তু কোনো একদিন বিদ্যালয়ে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি কিংবা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পালন ইত্যাদি হলে সেই ঘটনাটির গুরুত্ব এতটাই বেড়ে যায়, সেটা প্রতিবেদন হওয়ার যোগ্য হয়ে ওঠে।

প্রতিবেদনের শ্রেণিবিভাগ:

১) সংবাদভিত্তিক সাধারণ প্রতিবেদন 

২) সম্পাদকীয় প্রতিবেদন 

৩) সাক্ষাৎকারভিত্তিক প্রতিবেদন 

৪) ক্রীড়া প্রতিবেদন 


✍ মাধ্যমিক তথা দশম শ্রেণির জন্য প্রথম ধরনের অর্থাৎ সংবাদভিত্তিক সাধারণ প্রতিবেদন লিখতে হবে।

এখন দেখা যাক প্রতিবেদন কীভাবে লিখতে হবে---

১) শিরোনাম:

প্রতিবেদন লেখার সময় অবশ্যই একটা শিরোনাম তৈরি করতে হবে। শিরোনাম হবে চমকপ্রদ এবং যথার্থ, যা পাঠকের মন হরণ করবে এবং সংবাদ পাঠে  আকৃষ্ট করবে। অর্থাৎ শিরোনাম যথাযথ, বিষয়কেন্দ্রিক, চিত্তাকর্ষক ও সংবাদ উপযোগী হবে।

২) সংবাদদাতার ধরণ :

শিরোনামের পর কোন্ ধরনের সংবাদদাতা তা উল্লেখ করতে হবে যেমন নিজস্ব সংবাদদাতা, বিশেষ সংবাদদাতা প্রভৃতি।

৩) স্থান  ও তারিখ :

সংবাদদাতার ধরণ লেখার পরেই

 ঘটনার স্থান ও তারিখ উল্লেখ করতে হবে।


৪) বিবরণ :

ঘটনাটি কখন কোথায় কীভাবে ঘটেছে তা জানাতে হবে। এক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে ৫টি wh questions


What ? ~ কী ঘটল?

Where?~ কোথায় ঘটল?

When ? ~ কখন ঘটল ?

Why/Who ?~ কেন ঘটল ? / কারা ঘটাল?

How ?~ কতটা প্রভাব পড়ল?


 সবশেষে  সেই ঘটনায় আগত বিশিষ্ট  ব্যক্তির উদ্ধৃতি তুলে ধরে প্রতিবেদনটি শেষ করতে হবে।



প্রতিবেদন রচনা করতে হলে যে বিষয়গুলো গুরুত্ব দেওয়া প্রয়োজন :


১) প্রতিবেদন সত্য ঘটনার উপর ভিত্তি করে লিখতে হবে। সেখানে কোনো অনুমান বা কল্পনা চলবে না।


২) প্রতিবেদনটি অবশ্যই পক্ষপাতহীন ও ভারসাম্যপূর্ণ হবে।


৩) প্রতিবেদনটি সুখপাঠ্য করার জন্য সুন্দর, সাবলীল, সহজ-সরল ভাষা ব্যবহার করতে হবে। 


৪) প্রতিবেদনে দেওয়া তথ্যগুলো যাচাই করে নিতে হবে এবং একাধিক সূত্র অন্বেষণ করতে হবে।


৫) প্রতিবেদন সব সময় ভাববাচ্যে লিখতে হবে। প্রথম পুরুষ বা সে-পক্ষ অবলম্বনে প্রতিবেদন লেখা হয়।


৬) প্রত্যক্ষ উক্তির বদলে পরোক্ষ উক্তি ব্যবহার করতে হবে।


৭) কমবেশি ১৫০ শব্দের মধ্যে প্রতিবেদন লিখতে হবে।


প্রতিবেদন রচনার দৃষ্টান্ত :


১. কোনো গ্রামীণ এলাকায় একটি সরকারি হাসপাতাল উদ্বোধন হল —এ বিষয়ে একটি প্রতিবেদন রচনা করো ।   [মাধ্যমিক-২০১৭]

উঃ- 

    গাজিপুর গ্রামে উদ্বোধন হল সরকারি হাসপাতাল


নিজস্ব সংবাদদাতা, গাজিপুর, মুর্শিদাবাদ, ২২ শে ফেব্রুয়ারি ২০১৮ : সুতি ২ নং ব্লকের অন্তর্গত এক প্রান্তিক গ্রাম গাজিপুরে গতকাল মাননীয় শ্রম প্রতিমন্ত্রী ও স্থানীয় বিধায়ক  উপস্থিতিতে একটি সরকারি হাসপাতালের উদ্বোধন হয়ে গেল ।


এর পূর্বে গাজিপুর এবং আশেপাশের এলাকায় কোনো সরকারি হাসপাতাল ছিল না । চিকিৎসার জন্য মানুষকে জঙ্গিপুর  মহকুমা হাসপাতালে ছুটে যেতে হতো । অনেক সময় হাসপাতালে পৌঁছতে দেরি হয়ে গেলে, বহু দুরারোগ্য রোগী পথ মধ্যেই মারা যেতো । কিন্তু এই গাজিপুরে সরকারি হাসপাতালের উদ্বোধন হওয়ার পর এই সমস্যা আর থাকবে না বলেই মনে করছেন সাধারণ মানুষ । স্থানীয় বিধায়ক ও শ্রম প্রতিমন্ত্রীর গলায় শোনা যায়, "গাজিপুরে সরকারি হাসপাতাল থাকার দরুন বহু অসুস্থ ব্যক্তি সঠিক চিকিৎসা পেয়ে সুস্থ হয়ে উঠবেন আশা করছি ।"


প্রসঙ্গক্রমে নতুন উদ্বোধন হওয়া এই সরকারি হাসপাতালে দশটি ঘর আছে । ডাক্তার থাকবেন পাঁচজন । বিনামূল্যে ওষুধ পত্র দেওয়ার সুব্যবস্থা থাকবে । এমনকি মাঝরাতে কোনো অসুবিধা হলে অ্যাম্বুলেন্সেরও ব্যবস্থা আছে । হাসপাতালের উন্নত পরিকাঠামো দেখে গাজিপুরের এক বিশিষ্ট শিক্ষক তাপস কুমার দাস বলেন , "এবার থেকে অসুস্থ হলে আর দুর্ভাবনা থাকবে না এলাকাবাসীর । গাজিপুরের মতো গ্রামে সরকারি হাসপাতাল গড়ে তোলার জন্য স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে অশেষ ধন্যবাদ জানাই ।"


২.  তোমার এলাকায় একটি পাঠাগার উদ্বোধন হল — এ বিষয়ে একটি প্রতিবেদন রচনা করো ।      [মাধ্যমিক-২০১৮] 

 উঃ- 

 সকলের জন্য উন্মুক্ত হল অটল বিহারী স্মৃতি পাঠাগার


    নিজস্ব সংবাদদাতা, কাশিমনগর, মুর্শিদাবাদ, ২১ শে ফেব্রুয়ারি ২০২০ : সুতি ২ নং ব্লকের অন্তর্গত এক প্রান্তিক গ্রাম কাশিমনগরে উদ্বোধন হল অটল বিহারী স্মৃতি পাঠাগার। উপস্থিত ছিলেন পঞ্চায়েত প্রধান, কাশিমনগর হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক এবং বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিবর্গ। এলাকার বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে এক বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় । প্রদীপ প্রজ্জ্বলনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা করেন বিশিষ্ট শিক্ষক শ্রী অমর কুমার দাস মহাশয়। তিনি বলেন —"বই পড়ার অভ্যাস ক্রমশই কমে যাচ্ছে । পাঠাগারের মাধ্যমে নিশ্চয়ই স্থানীয় মানুষের মনে বইপড়ার আগ্রহ জন্মাবে ।" বর্তমান সময়ে পাঠাগারের উপযোগিতা ও প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে মনোজ্ঞ বক্তৃতা দেন কাশিমনগর হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক মহাশয়।


৩. বিদ্যালয়ের একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বিষয়ে একটি প্রতিবেদন রচনা করো ।     [মাধ্যমিক-২০১৯]

উঃ

 যথাযথ মর্যাদায়  পালিত হল শিক্ষক দিবস

    নিজস্ব সংবাদদাতা, অরঙ্গাবাদ, মুর্শিদাবাদ ৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ : অরঙ্গাবাদ অঞ্চলের বিশিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রণবানন্দ বিদ্যাপীঠ হাইস্কুলে গতকাল ডঃ সর্বপল্লী রাধাকৃষ্ণণের জন্মদিবস তথা শিক্ষক দিবস যথাযোগ্য মর্যাদা ও শ্রদ্ধার সঙ্গে পালিত হল । বিদ্যালয়ের হলঘরে দুপুর ১২ টায় এই অনুষ্ঠানের সূচনা করেন ভারত সেবাশ্রম সংঘের অরঙ্গাবাদ শাখার অধ্যক্ষ তথা বিদ্যালয়ের সম্পাদক শ্রীমৎ স্বামী প্রদীপ্তানন্দ মহারাজ । তিনি দেশ ও জাতি গঠনে শিক্ষকদের ভূমিকার কথা আলোচনা করেন । সভায় বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক-শিক্ষিকা, ছাত্রছাত্রী, অভিভাবক এবং প্রাক্তন ছাত্রছাত্রীগণ  উপস্থিত ছিলেন ।


 বিদ্যালয়ের বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষক ও ছাত্রদের পক্ষ থেকে এক মনোজ্ঞ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।আবৃত্তি,ক্যুইজ,নাচ ,গান,নাটক মিলিয়ে প্রায় তিন ঘণ্টার অনুষ্ঠান হয়।

সুন্দর ও সুপরিকল্পিত অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে অঞ্চলের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ এবং প্রবীণ শিক্ষকদের সংবর্ধিত করা হয় । অনুষ্ঠানের শেষে বিদ্যালয়ের সভাপতি উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন । বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে সকলকে অনুষ্ঠানের স্মারক রূপে বিদ্যালয়ের নামাঙ্কিত কলম উপহার দেওয়া হয় ।


৪. তোমার এলাকায় অরণ্য সপ্তাহ পালিত হল- এ বিষয়ে সংবাদপত্রের উপযোগী একটি প্রতিবেদন রচনা করো। [ মাধ্যমিক-২০২০]

উত্তর:

প্রণবানন্দ বিদ্যাপীঠ হাইস্কুলে পালিত হল অরণ্য সপ্তাহ 


 নিজস্বসংবাদদাতা,অরঙ্গাবাদ, মুর্শিদাবাদ ২০ জুলাই, ২০১৯ : প্রণবানন্দ বিদ্যাপীঠ হাইস্কুলে বুধবার এক বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মাধ্যমে অরণ্য সপ্তাহ পালন করল। এ দিন সকালে স্কুলের রোল কল এবং এক পিরিয়ডের পরে, স্কুল চত্বরে একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়। অনুষ্ঠানে ছাত্রছাত্রীরা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সুতি ২ নম্বর ব্লকের বিডিও সৌভিক ঘোষ মহাশয়, ডি.এন.সি কলেজের বাংলার অধ্যাপক মাননীয় সুনীল কুমার দে মহাশয়, প্রধান শিক্ষক বিশ্বজিৎ সরকার মহাশয় সহ এলাকার বহু বিশিষ্ট মানুষ। অরণ্য সপ্তাহ উপলক্ষে পরিবেশে অরণ্যের ভূমিকা নিয়ে স্কুল পড়ুয়াদের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের পাশাপাশি ওই মঞ্চেই বক্তব্য রাখলেন অধ্যাপক, বিডিও, সহকারী প্রধান শিক্ষক বিশ্বজিৎ সরকার-সহ অন্যান্য শিক্ষক ও বিশিষ্ট জনেরা। ব্লকের পক্ষ থেকে প্রত্যেক ছাত্র-ছাত্রীকে চারা গাছ উপহার দেয়া হয় এবং বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে চারা গাছ রোপন করা হয়। 


৫.   নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য ঊর্ধ্বমুখী - এ বিষয়ে সংবাদপত্রের জন্য একটি প্রতিবেদন রচনা করো ।


নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি 


নিজস্ব সংবাদদাতা, বহরমপুর, ২১ জুলাই ২০১৯ :  সম্প্রতি যেকোনো নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধি সর্বসাধারণের কাছে এক জ্বলন্ত সমস্যা হয়ে দেখা দিয়েছে। বিশেষভাবে ভোজ্যদ্রব্যগুলির দাম উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাওয়ায় সাধারণ মানুষের চূড়ান্ত সংকটের মুখোমুখি হচ্ছেন। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মধ্যে রয়েছে চাল, সরষের তেল ,আলু, পিঁয়াজ, জীবনদায়ী ওষুধ, বস্ত্র প্রভৃতি।


 নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য বৃদ্ধির সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে অর্থনৈতিক দিক। মুদ্রাস্ফীতির চাপ, চাহিদা-যোগানের ভারসাম্যহীনতা, ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধি প্রভৃতি কারণে দ্রব্যমূল্য ঊর্ধ্বমুখী হচ্ছে। ফলে নিম্ন মধ্যবিত্ত মানুষের অবস্থা হয়ে পড়েছে 'নুন আনতে পান্তা ফুরায়'- মতো। দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির ঊর্ধ্বগতি যদি অবিলম্বে স্তব্ধ করা যায় তবে দেশে চরম অস্থিরতা দেখা দেবে ,ভেঙে পড়তে পারে সমাজ ব্যবস্থা। দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি প্রতিরোধ রাজ্য ও কেন্দ্র সরকারকে যৌথভাবে পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে তবে সাধারণ মানুষ দুর্বিষহ অবস্থা থেকে মুক্তি লাভ করবে ।


৬. জলা বুজিয়ে সবুজ ধ্বংস করে আবাসন নয় - এই বিষয়ে অবলম্বনে একটি প্রতিবেদন রচনা করো।


 জলাভূমি ভরাট ও সবুজ ধ্বংসের বিরুদ্ধে স্থানীয় মানুষের প্রতিবাদ 


নিজস্ব সংবাদদাতা, চন্দননগর, ৫ জুন ২০১৯: বহুতল নির্মাণের জন্য জলাভূমি ধ্বংস করার যে অশুভ প্রচেষ্টা সর্বত্র লক্ষ করা যাচ্ছে তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদে সামিল হলেন চন্দননগরের স্থানীয় বাসিন্দাদের নিয়ে গড়ে ওঠা নাগরিক মঞ্চ। স্থানীয় নেতাজি সংঘের প্রাঙ্গণে প্রতিবাদ আন্দোলন মিলিত হলেন অঞ্চলের বিশিষ্ট মানুষজন । 


শহর ও শহরতলীতে আবাসন ও বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ক্রমশ বেড়ে চলেছে। একদিকে জনসংখ্যা বৃদ্ধি এর অন্যতম কারণ হলেও অন্যদিকে কিছু আবাসন নির্মাণচক্র বেআইনিভাবে জলাজমি বুঝিয়ে ও বৃক্ষছেদন করে ইট কাঠ পাথরের কাঠামো গড়ে তুলতে চাইছে । ফলে পরিবেশ হয়ে উঠছে দূষিত ও বিষাক্ত । প্রতিবাদ আন্দোলনে আয়োজিত আলোচনা সভায় বিভিন্ন বক্তা এই বিষয়টির উপর গুরুত্বারোপ করেন। সবুজ ও উন্মুক্ত পরিবেশকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য জলাভূমি ভরাটের মতো ঘৃণিত কাজের বিরুদ্ধে আগামী দিনে বৃহত্তর আন্দোলন এবং প্রতিবাদের শপথ গ্রহণ করেন। স্থানীয় প্রশাসক ও সর্বোচ্চ প্রশাসকের কাছে নাগরিকদের সই সংগ্রহ করে দুষ্টচক্র রাজের বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধ গড়ে তোলার ডাক দেওয়া হয়।


৭. রক্তদান শিবির এই বিষয়ের উপর একটি প্রতিবেদন রচনা করো ।


      রক্তদান জীবন দান 


নিজস্ব সংবাদদাতা,অরঙ্গাবাদ ,মুর্শিদাবাদ,২ জুলাই ২০১৯ : চিকিৎসক দিবস উপলক্ষে অরঙ্গাবাদ অগ্রণী যুব সংঘের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত হয়ে গেল একদিনে স্বেচ্ছায় রক্তদান শিবির । এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে সুষ্ঠুভাবে এই মহৎ উদ্যোগটি সুসম্পন্ন হয়। সকাল দশটায় রক্তদান শিবিরের উদ্বোধন করেন পশ্চিমবঙ্গের শ্রমপ্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন মহাশয়। উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক, ডি.এন.সি কলেজের অধ্যক্ষ এবং স্থানীয় বিশিষ্ট বুদ্ধিজীবী ও সমাজকর্মীগণ । 


আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞান বহু অসাধ্যসাধন ঘটালেও এ পর্যন্ত কৃত্রিম রক্ত আবিষ্কারে সক্ষম হয়নি। তাই অগ্রণী যুব সংঘের এই স্বেচ্ছায় রক্তদান শিবির অবশ্যই প্রশংসাযোগ্য একটি উদ্যোগ। সারাদিন ব্যাপী ৭৫ জন রক্তদাতা রক্ত দান করেন । রক্তদাতাদের প্রত্যেকের জন্য সামান্য জল খাবারের ব্যবস্থা করতে ভোলেনি ক্লাবটি। বেলা তিনটে নাগাদ রক্ত সংগ্রহ পর্ব শেষ হলেও পরবর্তী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের সন্ধে ছ'টা পর্যন্ত চলতে থাকে। সংঘের সম্পাদক জানান জঙ্গিপুর মহকুমা হাসপাতালের রক্তভাণ্ডারে রক্ত দান করা হবে। সবশেষে এলাকাবাসীর সার্বিক আগ্রহে ঘোষিত হয়- প্রতিবছর এই ভাবেই রক্তদানের মতো এমন মহাপুণ্যের অনুষ্ঠান আয়োজিত হবে।


নিজেরা  চেষ্টা করো 

৮. গাছ কাটার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে সংবাদপত্রে উপযোগী একটি প্রতিবেদন রচনা করো । 


৯. এলাকায় জমা জল থেকে ছড়াচ্ছে মশাবাহিত মারণব্যাধি এ বিষয়ে সংবাদপত্রের জন্য একটি প্রতিবেদন রচনা করো ।


১০. ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে মোবাইল ফোন ব্যবহারের প্রবণতা ও তার ক্ষতিকর প্রভাব নিয়ে সংবাদপত্রে প্রকাশের উপযোগী একটি প্রতিবেদন রচনা করো।


১১. টানা বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত জনজীবন এই বিষয়ে একটি প্রতিবেদন রচনা করো।


১২. প্লাস্টিক বর্জন বিষয়ে সংবাদপত্রে প্রকাশের উপযোগী একটি প্রতিবেদন রচনা করো ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ